রবিবার, মার্চ ৩, ২০১৯

প্রচ্ছদ > তারুণ্য > শশীর এগিয়ে চলা

শশীর এগিয়ে চলা

তারুণ্য ডেস্ক: তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী আরেফীন আহমেদ শশী। সম্প্রতি নির্মাণ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি অভিবাসীদের উপর একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। অবৈধ উপায়ে জীবনবাজি রেখে যারা মার্কিন মুল্লুকে ভীড় করেছেন তাদের উপর তথ্যমূলক চলচ্চিত্র তৈরি করে শশী। নিউইয়র্কের অভিবাসীদের সঙ্গে রীতিমতো কয়েক মাস কাটিয়ে তথ্যচিত্রটি নির্মাণ করেন তিনি। সংকটের গভীর থেকে তিনি বিষয়টি ক্যামেরার ফ্রেমে তুলে আনার চেষ্টা করেছেন। বিশ্বখ্যাত অ্যামি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী এটিএন বাংলার ‘আমরা করবো জয়’ এবং শিশু কিশোর অনুষ্ঠান সিসিমপুরে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি।

shashi4

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাজ করেছেন শশী। ছবি: সংগৃহীত।

শশী দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশের গণমাধ্যমে পরিচিত মুখ। একুশে টেলিভিশনের মুক্তখবরের মাধ্যমে আগমন তার। অভিনয় করেছেন শিশু অভিনেতা হিসেবে অনেক নাটকে।লোকনাট্য দলের শিশু কিশোর বিভাগে যোগ দেন। বিটিভি রেডিওতে অসংখ্য অনুষ্ঠানে অংশ নিতে থাকেন। হানিফ সংকেত, মান্নান হীরার মতো গুণী মানুষদের নির্মিত নাটকে অংশ নেন। ২০০০ সালে তিনি পিপলস থিয়েটারের হয়ে ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাস্টিভালে অংশ নিতে জার্মানি এবং জাপান ভ্রমণ করেন।

Shashi2

দীর্ঘদিন ধরে বিজ্ঞাপন ও সৃজনশীল কাজে যুক্ত শশী। ছবি: সংগৃহীত।

সম্প্রতি হলিউড ফিল্ম স্কুল থেকে অনলাইনে চলচ্চিত্র নির্মাণ, টিভি অনুষ্ঠান সম্পর্কিত কোর্স শেষ করেছেন তিনি। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে বিএফএ ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। আলোচিত চলচ্চিত্র মেহেরজানে অ্যাসিসটেন্ট ডিরেক্টর ছিলেন শশী। কাজ করেছেন ভ্যানিস ইন্টারন্যাশনাল ফিল্প ফ্যাস্টিভলে প্রশংসিত ছবি ‘ সেভেন টুয়েন্টি ডিগ্রিস’ এ।

shashi3

যুক্তরাজ্যে চলচ্চিত্র বিপণন ও যুক্তরাষ্ট্রের হলিউডে সিনেমার ওপর পড়েছেন শশী। ছবি: সংগৃহীত।

 বাংলাদেশে ভিডিও এডিটিং এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন তিনি। বর্তমানে বার্তা সংস্থা এএফপি’র হয়ে কাজ করেন। বিশ্বখ্যাত এই বার্তা সংস্থার হয়ে রোহিঙ্গা ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু কাজ করেছেন তিনি। কাজী আরেফিন আহমেদ শশীর লক্ষ্য চলচ্চিত্র নিয়ে অনেক কাজ করার। বিশ্বমানের কিছু কাজ করতে চান। বিশ্ব দরবারে নিজের কাজকে মেলে ধরার জন্যে নিজেকে প্রস্তুত করছেন। তিনি বলেন, ‘কাজ শিখতে শিখতে এগিয়ে চলেছি। যেতে চাই অনেকদূর’।

পাঠকের মন্তব্য

আপনার ই-মেইল অপ্রকাশিত থাকবেবক্সটি পূরণ করুন *

*

Pin It on Pinterest

Shares
Share This